-->
রুশ-ইউক্রেন সংকটের ফাঁদে নর্ড স্ট্রিম-২

রুশ-ইউক্রেন সংকটের ফাঁদে নর্ড স্ট্রিম-২

ANALYSING THE WORLD
ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট কর্তৃক "বিপদজনক ভূরাজনৈতিক অস্ত্র" খেতাবপ্রাপ্ত নর্ড স্ট্রিম পাইপলাইন প্রকল্পটি বর্তমানে বৈশ্বিক আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে। পৃথিবীর মোট প্রাকৃতিক গ্যাসের ১৭ শতাংশ উৎপাদন করে রাশিয়া। ইউরোপের প্রধান এবং বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম গ্যাস রপ্তানিকারক তারা। ফলে দেশটির উপরে প্রত্যক্ষ-পরোক্ষভাবে ইউরোপের অনেক দেশই নির্ভরশীল। সোভিয়েত আমল তথা সত্তর এর দশক থেকেই জার্মানি, ফ্রান্সসহ ইউরোপীয় ও বাল্টিক অনেক দেশ রাশিয়া থেকে গ্যাস আমদানি করে থাকে।
.

রুশ-ইউক্রেন সংকটের ফাঁদে নর্ড স্ট্রিম-২

.
বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ এই গ্যাস বাণিজ্যের গুরুত্বপূর্ণ ট্রানজিট হলো ইউক্রেন। ২০০০ সালের দিকে গ্যাসের মূল্য নির্ধারণ নিয়ে রুশ-ইউক্রেন বিবাদ সৃষ্টি হয়। এতে রাশিয়া স্বকীয়তা বজায় রাখতে বাল্টিক সাগরের তলদেশ দিয়ে নর্ড স্ট্রিম-১ পাইপলাইন স্থাপনের পরিকল্পনা করে, যার গন্তব্যস্থল ছিল জার্মানি। রুশ গ্যাস রপ্তানি রুটের ৮০ ভাগ ট্রানজিটের অধিকারী ইউক্রেন স্বভাবতই এর বিরোধিতা করে। কিন্তু তৎকালীন জার্মান শাসক গেরহার্ড শ্রোয়েডারের সাথে সখ্যতার ফলে পুতিন ২০০৫ সালের ৮ সেপ্টেম্বর পাইপলাইন প্রকল্পের চুক্তি সম্পাদন করতে সক্ষম হন। ৬ বিলিয়ন ডলারের প্রকল্পটি ২০১১ সালে শেষ হলে রাশিয়ার ইউক্রেন নির্ভরতা কমে আসে।