-->
বিশ্বরাজনীতিতে নজরদারি প্রযুক্তির প্রভাব

বিশ্বরাজনীতিতে নজরদারি প্রযুক্তির প্রভাব

ANALYSING THE WORLD
আন্তর্জাতিক রাজনীতি চলে তার আপন গতিতে, নির্ভর করে একেক সময় একেক বিষয়ের উপর, জন্ম দেয় নিত্য নতুন ঘটনার। মানব সভ্যতা এখন প্রযুক্তিগত উন্নয়নের শীর্ষে অবস্থান করছে। তাই মানব রাজনীতিতে প্রযুক্তির প্রভাব ও বিচরণ দিন দিন বাড়ছে। এর প্রভাবে কোন দেশে নতুন সরকার আসছে, তো আবার কোন দেশে ক্ষমতাসীন সরকারের পতন ঘটছে। এভাবেই প্রযুক্তির অভিগম্যতা প্রতিনিয়ত প্রভাবিত করছে মানব সভ্যতার ক্ষুদ্র থেকে বৃহৎ, সকল প্রত্যয়-প্রপঞ্চকে। ফলস্বরূপ আধুনিক জ্ঞান-বিজ্ঞানের প্রযুক্তি নামক ডিজিটাল ঘোড়ার চতুর সওয়ারী হয়ে স্বদেশ-বৈদেশে ছড়ি ঘুরানোর খেলায় মেতেছে বিশ্ব নেতৃত্ব। খেলাটি একসময় অতি গোপন থাকলেও এখন প্রযুক্তিরই কল্যাণে তা প্রকাশিত হচ্ছে সময়ে-অসময়ে, বেকায়দায় ফেলে দিচ্ছে মুখোশধারী গুপ্ত খেলোয়াড়দের।
.

বিশ্বরাজনীতিতে নজরদারি প্রযুক্তির প্রভাব

.
আধুনিক বিশ্বে মানুষের উপর কর্তৃত্ব বৃদ্ধি করতে ক্ষমতাবানদের সবচেয়ে প্রিয় ও মোক্ষম হাতিয়ার হলো আড়ি পাতার প্রযুক্তি। এখন কম্পিউটার বিজ্ঞানের প্রবেশ ও অস্তিত্ব রয়েছে প্রতিটি ঘরে ঘরে। করোনা আমাদের দেখিয়েছে, প্রযুক্তির মাধ্যমে কীভাবে ঘর থেকে সবকিছু পরিচালনা করা যায়, আর এর বিচ্ছিন্নতা কীভাবে আমাদের বিশ্বব্যবস্থা থেকেই বিচ্ছিন্ন করে ফেলে। তাই বাধ্য হয়ে মানুষ ঘরে ঘরে প্রযুক্তিগত ডিভাইসগুলো স্থাপন করছে, আর এগুলোই এখন হয়ে উঠছে ক্ষমতাবানদের মনুষ্য জাতি নিয়ন্ত্রণের গোপন অস্ত্র। এর মাধ্যমে উপর মহল প্রত্যেকটি মানুষের গোপনীয়, ব্যক্তিগত সব ধরনের বিষয় সম্পর্কে অবগত হতে পারছে; এমনকি কখনো কখনো তা নিয়ন্ত্রণও করছে। এভাবে জনসাধারণকে ঘর থেকে সর্বাধিক দুর্বল জায়গায় আঘাত করা যায় বলেই হয়তো এই নজরদারি প্রযুক্তিকে বিশ্ব বিখ্যাত গণমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্ট "সামরিক অস্ত্র" হিসেবে আখ্যা দিয়েছে।