-->
ভারতে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা 2020 | ভারত পুলিশ উল্টো দাঙ্গায় অংশ নিল! | মুজিববর্ষে মোদিকে বাংলাদেশে আসতে বাঁধা

ভারতে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা 2020 | ভারত পুলিশ উল্টো দাঙ্গায় অংশ নিল! | মুজিববর্ষে মোদিকে বাংলাদেশে আসতে বাঁধা

ANALYSING THE WORLD
ভারতে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা ২০২০ নতুন করে শুরু হয়েছে।ভারতে রবিবার থেকে শুরু হওয়া সাম্প্রদায়িক দাঙ্গায় এখন পর্যন্ত ৪২ জন নিহত হয়েছে।

ভারতে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা 2020


ভারতে চলমান এনারসি নিয়ে যে বিক্ষোভ চলছে দুই মাসব্যাপী,তা দমনে মোদি প্রশাসন নিয়েছে নির্মম পদক্ষেপ।
পুলিশের দায়িত্ব যেখানে দাঙ্গা দমন করা,সাম্প্রদায়িক সংঘাত হ্রাস করা,সেখানে ভারত পুলিশ উল্টো দাঙ্গায় অংশ নিল! প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে #ওয়াশিংটন_পোস্ট জানায়,দিল্লি পুলিশ দাঙ্গা দমন না করে বরং দাঙ্গায় অংশ নেয় এবং #জয়_শ্রীরাম স্লোগান দিয়ে তিনটি মসজিদে আগুন দেয়!


ভারতীয় ওয়েবসাইটের এক প্রত্যক্ষদর্শী সাংবাদিক অবিচল দুবেই জানায়,মঙ্গলবার অশোক নগরে বিজেপি সমর্থক দুই'শ জনের একটি দল #জয়_শ্রীরাম স্লোগান দিচ্ছিল,পরবর্তীতে তারা দোকানপাট ভাংচুর করে এবং কিছু লোক পার্শবর্তী মসজিদের মিনার বেয়ে উঠে মাইক ভেঙ্গে ফেলে! তদস্থলে তারা গেরুয়া রঙের হনুমান পতাকা এবং ভারতের পতাকা লাগিয়ে দেয়!


একই এলাকার একটি ছোট মসজিদ ফারুকিয়া মসজিদের ইমাম জানান,বিকালের নামাজের পর একদল পুলিশ আসে এবং ইমাম ও তাকে দেশদ্রোহী বলে গালিগালাজ করতে করতে মারতে থাকে।ইমাম হাসপাতালে স্বাক্ষাৎকারে বলেন,তারা আমাকে অকারণে বেধড়ক পিটিয়ে রক্তাক্ত করেছে এবং আমার একটি হাত ভেঙ্গে দিয়েছে।
আফগান যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের পাওয়া | আফগান যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের আত্মসমর্পণ! | তালেবানদের সাথে যুক্তরাষ্ট্রের চুক্তি

আফগান যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের পাওয়া | আফগান যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের আত্মসমর্পণ! | তালেবানদের সাথে যুক্তরাষ্ট্রের চুক্তি

ANALYSING THE WORLD
আফগান যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র আত্মসমর্পণ করতে যাচ্ছে। সধারণত আফগান যুদ্ধে তালেবানদের সাথে যুক্তরাষ্ট্রের যেকোন চুক্তি বা খবর বিশ্বজুড়ে শান্তি ও স্বস্থির বার্তা বয়ে নিয়ে আসে।

আফগান যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের পাওয়া


বর্তমানে তালেবান ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার হতে যাওয়া চুক্তিটি সেপ্টেম্বরে হওয়া প্রথাগত কোন চুক্তি নয়। বরং কয়েক স্তরে হতে যাওয়া ধারাবাহিক প্রক্রিয়া। এই প্রক্রিয়ার প্রথম ধাপ হলো এক সপ্তাহ উভয় পক্ষ কোন সামরিক সংঘাতে জড়াবে না,যা বর্তমানে চলছে। আগামী ২৯ ফেব্রুয়ারী এই সপ্তাহ সঠিকভাবে শেষ হলে কাতারের দোহায় একটি ঐতিহাসিক চুক্তি স্বাক্ষরিত হতে যাচ্ছে তালেবানদের সাথে যুক্তরাষ্ট্রের,যা গত সেপ্টেম্বরে ক্যাম্প ডেভিডে হওয়ার কথা।


তবে আফগান যুদ্ধে কোন চুক্তি বা সমঝোতায় সবসময় আটটি প্রশ্নের আবির্ভাব ঘটে। আর সেগুলো হলো:-
●চুক্তিতে কি থাকছে?
●এটি কি যুক্তরাষ্ট্রের পরাজয়?
●এটি কি তালেবানের বিজয়?
●ন্যাটোর গড়ে তোলা আফগান সরকারের কি হবে?
●ঠিক এই সময়ে কেন তড়িঘড়ি করে এই চুক্তি?
●প্রতিবেশি কার কি চাওয়া?
●শান্তি আসবে কি?
●ভবিষ্যতে আফগান সরকারের রূপ কী হবে?
 অস্ত্র কিনছে ভারত! তিন বিলিয়ন ডলারের অত্যাধুনিক অস্ত্র ক্রয়ে চুক্তি!

অস্ত্র কিনছে ভারত! তিন বিলিয়ন ডলারের অত্যাধুনিক অস্ত্র ক্রয়ে চুক্তি!

ANALYSING THE WORLD
নতুন করে অস্ত্র কিনছে ভারত।তিন বিলিয়ন ডলারের অস্ত্র ক্রয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সাথে চুক্তি করেছে মোদি প্রশাসন।

 অস্ত্র কিনছে ভারত! তিন বিলিয়ন ডলারের অত্যাধুনিক অস্ত্র ক্রয়ে চুক্তি!

এনারসি নিয়ে উত্তাল ভারতে ট্রাম্পের নিজ দেশের নির্বাচনের আগ মুহূর্তে তড়িঘড়ি করে প্রথমবারের মত ভারত সফর তাৎপর্যবহুল।আর সেই সফর থেকে নিজেদের ফায়দা তুলে নিতে নড়বড়ে মোদিও নিয়েছেন ব্যাপক প্রস্তুতি।ঢেলে সাজানো হয়েছে যাতায়াত পথকে।দুই দিনের যাবতীয় আতিথিয়েতার জন্যে বাজেট করা হয়েছে একশ কোটি রুপি!


ট্রাম্পের এই সফরের কারণ এবং উদ্দেশ্য নিয়ে ভারতের উৎসাহের কারণ জানান দিয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত ভারতীয় সাবেক রাষ্ট্রদূত।তিনি বলেছেন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে ভারতের কুটনৈতিক এবং অর্থনৈতিক সম্পর্ক আগে থেকেই ভাল,তাই এটি নিয়ে নতুন করে সফরের কোন প্রয়োজন নেই।এইবারের চুক্তির মূল উদ্দেশ্য ভারতের সামরিক উন্নয়ন।

তিন বিলিয়ন ডলারের অত্যাধুনিক অস্ত্র ক্রয়ে চুক্তি!

চুক্তিতে দেখা যায় প্রায় তিন বিলিয়ন ডলারের অস্ত্র চুক্তি স্বাক্ষর করলো ভারত।যার মাধ্যমে ভারত তার সামরিক শক্তিকে যথাযথ করে তুলতে পারবে।

গত বছর পাকিস্তানের হামলায় ভারতের দুটি #মিগ_20 বিমান বিধ্বস্ত হয় এবং উইং কমান্ডার পাকিস্তানের হাতে আটক হয়।এরপর থেকেই নড়েচড়ে বসে ভারতের সামরিক বিভাগ এবং নতুনভাবে আকাশ প্রতিরক্ষা বিভাগকে ঢেলে সাজাতে উদ্যোগ নেয়।এই উদ্যোগেরই ফল হলো তিন বিলিয়ন ডলারের অস্ত্র ক্রয়।যার মধ্যে রয়েছে কয়েক ধরনের হেলিকপ্টার ক্ষেপণাস্ত্র ও উন্নত প্রযুক্তির আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা।


ভারত গণহত্যার প্রস্তুতি নিচ্ছে

ভারত গণহত্যার প্রস্তুতি নিচ্ছে

ANALYSING THE WORLD

ভারতে সুস্পষ্টভাবে গণহত্যার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন জেনোসাইড ওয়াচের প্রতিষ্ঠাতা ডা. গ্রেগরি স্টানটন।যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসিতে ভারতের কাশ্মীর ও জাতীয় নাগরিক পঞ্জি নিয়ে সরেজমিন প্রতিবেদন শিরোনামে ব্রিফিংয়ে তিনি এমন দাবি করেছেন।

ভারত গণহত্যার প্রস্তুতি নিচ্ছে


পার্শবর্তী দেশ হওয়ায় ভারতের রাজনীতি,অর্থনীতি;এমনকি সামাজিক অবস্থার প্রভাবও বাংলাদেশের ওপরে পড়ে।সম্প্রতি ভারত সরকার যেসব পদক্ষেপের মাধ্যমে তাদের নতুন পথে হাঁটার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করছে,তা ইতোমধ্যেই বিশ্বব্যাপী আলোচিত-সমালোচিত হয়েছে।


ভারত কাশ্মীর নিয়ে যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত নেয়ার পর জাতীয় নাগরিক পঞ্জী বাস্তবায়নে উঠে পড়ে লেগেছে।এই আইনের বিপক্ষে দেশ বিক্ষোভে উত্তাল এবং আন্দোলনে অর্ধশতাধিক নিহত হলেও সরকার নিজ সিদ্ধান্তে অটল।বরঞ্চ আন্দোলন ঠেকাতে নিজস্ব সন্ত্রাসী সংগঠন কর্তৃক সরাসরি গোলাবর্ষণ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢুকে শিক্ষার্থীদের ভয় দেখাতে বেধড়ক পিটিয়েছে।আরোপ করেছে সংবাদ মাধ্যম ও টিভিগুলোর উপরে কড়াকড়ি।কিন্তু ভারত বিশ্বের বৃহত্তম গণতান্ত্রিক ও অন্যতম ধর্মনিরপেক্ষ দেশ,তাই সেখানের জাতীয়তাবাদ ও নাগরিকত্বের সাথেও এই দুইটি বিষয় জড়িয়ে আছে,যার ফলস্বরূপ দখা যাচ্ছে মাসব্যাপী হামলা-মামলার পরেও বিভিন্ন প্রদেশসহ রাজধানী দিল্লিতে ব্যাপক বিক্ষোভ চলছে।তবে সরকারের পদস্থ কর্মকর্তারাও ক্ষমতার দাপটে প্রতিদিন যা তা বলে যাচ্ছে,এমনকি এনারসি বিরোধীদের সরাসরি গুলি করার কথাও বলেছে একজন•••

আসুন দেখি এই নাগরিক পঞ্জির ভবষ্যৎ, উদ্দেশ্য এবং ফলাফল কী•••


বিশ্লেষকদের মতে কাশ্মীরের মুসলমানদের অগ্রাহ্য করে সেনাবাহিনী মোতায়েন করে 370 ধারা বাতিল,বাবরি মসজিদের অবান্তর রায়,এবং ব্যাপক বাঁধা উপেক্ষা করে নাগরিক পঞ্জী বাস্তবায়নের পেছনে রয়েছে ধর্মীয় উদ্দেশ্য!