-->

করোনা ভাইরাসের ভয়ঙ্কর রহস্য | COVID19 | NCOV-19

করোনা ভাইরাস হ'ল ভাইরাসগুলির একটি পরিবার যা স্তন্যপায়ী প্রাণীর জন্য রয়েছে যা স্তন্যপায়ী এবং পাখিগুলিতে সম্ভাব্য মারাত্মক রোগের কারণ করে

করোনা ভাইরাস হ'ল ভাইরাসগুলির একটি পরিবার যা স্তন্যপায়ী প্রাণীর জন্য রয়েছে যা স্তন্যপায়ী এবং পাখিগুলিতে সম্ভাব্য মারাত্মক রোগের কারণ করে। মানুষের মধ্যে এগুলি সাধারণত সংক্রামিত ব্যক্তিদের দ্বারা উত্পাদিত তরল বায়ুবাহিত ফোঁটাগুলির মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

করোনা ভাইরাসের ভয়ঙ্কর রহস্য


বিশ্বে তোলপাড় সৃষ্টিকারী মারণঘাতী ভাইরাস করোনা নিরাময়ে কোন ভ্যাক্সিন এখনো কাজ করছে না।অসস্ট্রেলিয়ার গবেষকরা যদিও ভ্যাক্সিন আবিষ্কারের দাবি করেছে,তবে তা এখনো স্বীকৃত হয়নি এবং প্রয়োগ করা হচ্ছে না কোথাও।বিশ্বব্যাপী মানুষ মরছে অকাতরে,যেহেতু এই রোগের সঠিক কোন ওষুধ নেই।সবচেয়ে বড় কথা এই রোগ কোন ব্যাক্তির মাঝে আছে কিনা তা বোঝার আগেই অন্যের মাঝে সে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে।


এই ভাইরাসে আক্রান্ত মৃতের সংখ্যা চীন সরকার 200 বললেও সেখানকার অধিবাসীরা বলছে মূল সংখ্যা কয়েক হাজার। বিজ্ঞানীরা এই ভাইরাসে বিশ্বব্যাপী সাড়ে ছয় কোটি মানুষ মারা যাওয়ার আশঙ্কা করছেন।এখন আসি কোথায় কিভাবে এই ভাইরাসের জন্ম এবং কী উদ্দেশ্যে এর সৃষ্টি•••


করোনা ভাইরাসের রহস্য উদঘাটনে বেরিয়ে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য! ইসরায়েলি সামরিক বাহিনীর গবেষকরা জানিয়েছেন শক্তিশালী বায়োলজিক্যাল অস্ত্র তৈরি করতে গিয়ে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে।চীনের ওহান শরের জৈব রাসায়নিক মরণাস্ত্র তৈরির কারখানা বয়োসেফ্টি_লেভেল_4 থেকে অসাবধানতাবশত এই ভাইরাস ছড়িয়েছে।জৈব রাসায়নিক অস্ত্র তৈরি নিয়ে গবেষণা করতে গিয়ে এই ঘটনা ঘটিয়েছেন চীনের সামরিক বিজ্ঞানীরা।


করোনা ভাইরাসের ভয়ঙ্কর রহস্য
করোনা ভাইরাসের ভয়ঙ্কর রহস্য

#CNN সহ বিশ্বের প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যমে জানাগেছে,চীনে সামরিক বাহিনীতে ছাটাইকরণ,আধুনিকিকরণ ও প্রযুক্তিগত উন্নয়নের অংশ হিসেবে চলছে জৈব ও রাসায়নিক অস্ত্র নিয়ে গবেষণা।যার অধীনে তারা সার্স(SARS) জাতীয় ভাইরাস নিয়ে গবেষণা চালাচ্ছে।বিশ্বের শক্তিধর রাষ্ট্রগুলোকে জব্দ করে চাপে রাখতে চীনের সামরিক বাহিনীর গবেষকরা জ্বীনগত অভিযোজন ঘটিয়ে করোনার মতো এমন অনেক মারাত্মক ভাইরাস তৈরি করেছেন,যা মিসাইল,ড্রোন,বিমান,ঘড়ি বা বেল্টের মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়া যাবে।আর এই ভাইরাসের ফলে 15 থেকে 25 দিনের মধ্যে একটি এলাকা বা কয়েক শহর পরিণত হতে পারে মৃত্যপুরিতে! এক মাসের অর্ধেক সময়ে কয়েকটি শহরকে করতে পারে জনমানবশুন্য!


বিশ্বাস হচ্ছে না তো???
হ্যাঁ।মানুষই নিরপরাধ মানুষকে নির্মমভাবে নিরবে হত্যা করতে গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছে।আমাদের এই সভ্যতা,এই প্রযুক্তিই আমাদের ধ্বংসের কারণ হয়ে যাচ্ছে,এটাই সত্য।
বলাবাহুল্য যে চীন বিশ্বের সর্ববৃহৎ জৈব-রাসয়নিক অস্ত্র গবেষণাকেন্দ্র তৈরি করেছে।আর যে করোনা ভাইরাসটি ভুলবশত ছড়িয়ে পড়েছে,তার চেয়ে ভয়ানক ভাইরাস তাদের কাছে থাকতে পারে বলে আশঙ্কা রয়েছে।

ANALYSING THE WORLD

Author & Editor

International Political Analyst and Content Writer.

0 comments:

Post a Comment

Please do not enter any spam link in the comment box.