-->

প্রোগ্রামিং ও শিক্ষাব্যবস্থা

উন্নত বিশ্বের শিশু থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া অধিকাংশ ছাত্র-ছাত্রীরাই কম্পিউটার এবং প্রোগ্রামীং নামক দুটো সিস্টেম সম্পর্কে যথেষ্ট ধারণা রাখে।আমাদের কম্পিটার ব্যবহারকারীদের 80%-ই ভিডিও এডিটিং,মাইক্রোসফ্ট অফিস/এক্সেল/পাওয়ার পয়েন্টের মধ্যে সীমাবদ্ধ।এর বাইরে যা আছে তা সম্পর্কে ধারণা রাখে 20%,এবং সেগুলো নিয়ে কাজ করে 5% এরও কম।

উন্নত বিশ্বের শিশু থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া অধিকাংশ ছাত্র-ছাত্রীরাই কম্পিউটার এবং প্রোগ্রামীং নামক দুটো সিস্টেম সম্পর্কে যথেষ্ট ধারণা রাখে।আমাদের কম্পিটার ব্যবহারকারীদের 80%-ই ভিডিও এডিটিং,মাইক্রোসফ্ট অফিস/এক্সেল/পাওয়ার পয়েন্টের মধ্যে সীমাবদ্ধ।এর বাইরে যা আছে তা সম্পর্কে ধারণা রাখে 20%,এবং সেগুলো নিয়ে কাজ করে 5% এরও কম।
হ্যাঁ,আমি বলছি কম্পিউটার প্রোগ্রামিং সম্পর্কে•••

প্রোগ্রামিং ও শিক্ষাব্যবস্থা


প্রথম বিশ্বের দেশগুলোর ছেলে-মেয়েরা ছোট থেকেই প্রোগ্রামিং শুরু করে,10/12 বছর না হতেই একজন কম্পিউটার প্রোগ্রামার হওয়া কোন ব্যাপারই না!
যেখানে আমরা অনেকেই জানিনা কম্পিউটারের বিভিন্ন ভাষা জেনে তা প্রয়োগের মাধ্যমে কম্পিউটারে বিভিন্ন সিস্টেম তৈরি করাকে প্রোগ্রামিং বলে।


কিছুদিন আগে যুক্তরাষ্ট্রের একটি প্রোগ্রামিং ও হ্যাকিং প্রতিযোগীতায় মাত্র এগারো বছর বয়সী এক শিশু যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক ওয়েবসাইট হ্যাক করে বিস্ময়ের সৃষ্টি করেছে।তবে সেটি ছিল বিখ্যাত হ্যাকারের সমন্বয়ে আয়োজক কমিটির তৈরী ওয়েবসাইট,কিন্তু তারা নিশ্চিত করেছেন যে সাইটটি রাষ্ট্রীয় সাইটের তুলনায় আরো স্ট্রং প্রোগ্রামিং দ্বারা তৈরি করেছেন!
জেনে রাখা উচিত যে,ফেইসবুকের প্রতিষ্ঠাতা জাকারবার্গ মাত্র সাত বছর বয়সে এবং মাইক্রোসফ্টের প্রতিষ্ঠাতা এগারো বছর বয়েসে প্রোগ্রামিং শুরু করেছিলেন!


একজন উন্নত মানের প্রোগ্রামার হতে কম পক্ষে পাঁচটি ভাষা জানতে হবে,তবে 2/3 টি দিয়েও ভাল কাজ করা যায়।একটা মজার ব্যাপার হল একজন প্রোগ্রামার চাইলেই একজন হ্যাকারে পরিণত হতে পারে।কেননা হ্যাকার হতে প্রোগ্রামিং জানা আবশ্যক।তবে বর্তমানের স্প্যাম,রোপোর্ট করে ফেবু আইডি ব্যান করে দেয়া পাতি পাগলদের জন্য এতকিছুর দরকার নেই•••
বর্তমানের র্রাংকিং এ শীর্ষে থাকা প্রোগ্রামিং লেঙ্গুয়েজগুলো হল:

1-JAVA SCRIPT
2-PYTHON
3-C/C++
4-RUBY(hacking based)
5-SQL

সুসংবাদ হল এই যে,উন্নত বিশ্বের এতসব অগ্রগতির মাঝে আমাদেরও টনক নড়েছে খানিক বিলম্বে হলেও•••
আমাদের দেশেও স্কুলগুলোতে প্রোগ্রামিং শিক্ষা উদ্বোধনের প্রতি সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে শুরু হয়েছে কিছু প্রোগ্রামিং প্রতিযোগীতা।


প্রোগ্রামিং ও শিক্ষাব্যবস্থা
প্রোগ্রামিং ও শিক্ষাব্যবস্থা

"স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক-প্রথম আলো আন্তস্কুল ও কলেজ প্রোগ্রামিং প্রতিযোগীতা" শুরু হয়েছে সম্প্রতি।এখানে সুযোগ থাকবে একদম কিছুই না জানা শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণের সুযোগ।এছাড়াও আজকাল বিভিন্ন সমাবেশ ও সেমিনারে কম্পিউটার প্রোগ্রামিং নিয়ে কথা বলেন,উৎসাহী করেন জনগণকে।এসবের মাধ্যমে ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে প্রোগ্রামিং নিয়ে আগ্রহ সৃষ্টি হবে,শিখবে;আর এর মাধ্যমেই আমরা উন্নত জাতিতে পরিণত হব।


আর আয়ের ব্যাপারে তো বলার অপেক্ষা রাখে না।একজন ভাল প্রোগ্রামার মাসে চার থেকে পাঁচ লক্ষ টাকা অনায়াসে আয় করতে পারে।দুঃখের বিষয় হল আমাদের দেশেই প্রাগ্রামারের যে চাহিদা,তা সামাল দেয়ার মত প্রোগ্রামার সংখ্যা বাংলাদেশে নেই,জরিপে দেখা গেছে 2030 সালে অনলাইনে কাজ করিয়ে নিতে বাইরের দেশের প্রোগ্রামারদের পেছনে প্রতি মাসে কোটি কোটি টাকা ব্যয় করতে হবে বাংলাদেশকে•••

প্রোগ্রামিং এর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হল এটা মানুষকে সমস্যা সমাধানে পারদর্শী করে তোলে,এই জন্যেই উন্নত বিশ্বের শিশুরা অনেক আত্মপ্রত্যয়ী হয়,সমস্যা সমাধানে পারদর্শী হয়।উপর্যুক্ত প্রতিযোগীতাটি কিন্তু এই "সমস্যা সমাধানে পারদর্শী হও" সিরোনাম দিয়েই শুরু হচ্ছে!

পরিবর্তন হচ্ছে,চলছে;আপনি বসে আছেন কেন?চলুন না তাল মিলিয়ে গড়ে তুলি নিজেকে•••

ANALYSING THE WORLD

Author & Editor

International Political Analyst and Content Writer.

0 comments:

Post a Comment

Please do not enter any spam link in the comment box.